যুব সমাজের অবক্ষয়, কি করলো মিরপুরের সামির?

 স্টাফ রিপোর্টারঃ আরিফ

ছবি তুলেছেনঃ আজাদ 



ঘটনার সুত্রপাত দিনাজপুর সদরের বড়ইল গ্রামে।  ঢাকা থেকে দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করে ঢাকা মিরপুরের এক জোয়ান যুবক। পেশায় সে এক ছাত্র, পাশাপাশি সে ছোটোখাটো ওয়েবসাইটের কাজ করে, ওয়েবসাইটের ডিজাইন করা তার অন্যতম শখ। বন্ধুর সাথে সে এক দুরের আত্মীয়র বাড়িতে বেড়ানোর সময় "ভাঙ্গা বাটাল" পুলে মাছ ধরতে যায়। মাছ ধরার সাথে সাথে সে তার নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের জোগান দিতে পারছিলো না।তাই বড়োলোকির জোরে সে কেঁচো দিয়ে মাছ ধরতে শুরু করে। 

বেকারত্বের শিকার সামির আজ কোন পথে বেরুলো? বেকারত্ব তাকে আজ তাকে আকাশ থেকে মাটিতে নামিয়ে দিলো.... সামিরের সাথে দেখা  করতে চাইলে সে তার অসুস্থতাকে কারণ দেখিয়ে আবেদন নাকচ করে দেয়। তার এক নিকট বন্ধু আজাদের মাধ্যমে আমরা জানতে পারি যে এসবের মূল উদ্দেশ্য হলো "প্রেমে ছেকা" ঢা.বির প্রফেসর মোছাঃ জানিনা আক্তারের কাছে এই ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন"ছ্যাকা বর্তমানে একটি স্বাভাবিক ব্যাপার হলেও কিছু কিছু ছেলে ছ্যাকা খেয়ে ব্যাকা হয়ে যায়। সাধারণ জনগণের এটাই দাবি যে ছেলে মেয়েরা প্রেম থেকে বিরত থাকুক,যতখন না তারা পর্যাপ্ত প্রশিক্ষন (প্রেম বিষয়ক)না পায়"

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য